রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:১০ পূর্বাহ্ন

উখিয়ায় অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ায় যাওয়ার পথে সাবেক চেয়ারম্যানের উপর হামলা, আহত-২

 

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

উখিয়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সুরক্ষিত বড়–য়া’র অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হয়েছেন ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান দীপক বড়–য়া। হামলার ঘটনায় দীপকসহ আহত ২ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় দীপক বড়–য়া বাদী হয়ে উখিয়ায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

২৪ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) দুপুর দেড়টার দিকে উখিয়া উপজেলার রতœাপালং ইউনিয়নের ভালুকিয়াপালং মাতবরপাড়াস্থ অরবিন্দু বড়–য়ার বাড়ির সামনে ঘটনাটি ঘটেছে।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, প্রয়াত: বীর মুক্তিযোদ্ধা সুরক্ষিত বড়–য়ার অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক চেয়ারম্যান দীপক বড়–য়া ও তাঁর ছোট ভাই বাবুল বড়–য়া মোটর সাইকেল যোগে যাওয়ার পথে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা প্রতিপক্ষ ডালিম বড়–য়ার স্ত্রী তিন্নি বড়–য়া (৩২), অনিত্য বড়–য়ার স্ত্রী সুকলা বড়–য়া (২৮), মৃত সর্বানন্দ বড়–য়া সিকদারের ছেলে পরিতোষ বড়–য়া (৬০), সুধীর বড়–য়া ছেলে অনিত্য বড়–য়া (৪০), রতœদর্শী বড়–য়া ছেলে প্রিভেল বড়–য়া (২০), বেচারাম বড়–য়ার ছেলে কাজল বড়–য়া (২৫), সুরেশ বড়–য়ার ছেলে সাগরদ্বীপ বড়–য়া (৫০), বিমল বড়–য়ার ছেলে সুমন বড়–য়া (৩০), যাত্রামোহন বড়–য়ার ছেলে সুমল বড়–য়া (৫৫), মৃত হরি মোহন বড়–য়ার ছেলে ডালিম বড়–য়া (৩৮), মৃত সত্য মোহন বড়–য়ার ছেলে সুমন বড়–য়া (৪০), মৃত ভবতোষ বড়–য়া স্ত্রী পুতুল রানী বড়–য়া (৫০), সুমল বড়–য়ার ছেলে নিশাত বড়–য়া (৩০), রাজেন্দ্র বড়–য়ার ছেলে সুপায়ন বড়–য়া (৩০), পরিমল বড়–য়ার ছেলে বাবলা বড়–য়া (৩০), রাজেন্দ্র বড়–য়ার ছেলে রিটন বড়–য়া (৩৫), নিকসন বড়–য়ার ছেলে লিমন বড়–য়া (৩০)সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫জন সংঘবদ্ধ হয়ে দা, লাঠিসোটা ও লোহার রড নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

এ সময় ৪নং বিবাদীর হামলায় দীপক বড়–য়ার (জখমী) চোখে গুরতর আহত হয়। একই সাথে ৩নং বিবাদী পরিতোষ বড়–য়ার লোহার রডের আঘাতে দীপক বড়–য়ার কাঁচা দাত ভেঙ্গে যায়। এ সময় গলায় পরিহিত দেড় ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন নগদ ৩২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। ওই সময় ১নং স্বাক্ষী তাকে উদ্ধারে এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে গলায় থাকা ১ ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইনটি ছিনিয়ে নেয়। পরে তাদের শৌর চিৎকারে অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ায় আগত লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে উখিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করিলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎসক দীপক বড়–য়াকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেন।

পরে রাত ৮টার দিকে উখিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করার পর রক্তাক্ত অবস্থায় ন্যায় বিচারের দাবীতে উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব এসে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় তাঁর সহধর্মীনি ও ভাই বাবুলসহ স্বজনরা উপস্থিত ছিল।

এ ব্যাপারে উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আহাম্মদ সঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধাকে গার্ড অব অনার দিতে যাওয়া উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশী ঘটনাটি সম্পর্কে জেনেছি। এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ