বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন

ছাত্রলীগের গৌরবগাঁথাকে আরো সমুজ্জ্বল করতে হবে- জাহাঙ্গীর কবির নানক

ছাত্রলীগ কক্সবাজার জেলা শাখা

শাহেদ মিজান,
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক মন্ত্রী এড. জাহাঙ্গীর কবীর নানক বলেছেন, বাংলাদেশের সকল আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা রেখে গৌরবের সৌধ প্রতিষ্ঠা ছাত্রলীগ। আগামীতে আরো ভালো কাজের মাধ্যমে এই গৌরবগাঁথাকে আরো সমুজ্জ্বল করতে হবে। এই জন্য বিভেদ না রেখে ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।
রোববার (৩১ জানুয়ারি) ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
আওয়ামী লীগের এই প্রেসিডিয়াম সদস্য ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরাই আগামীর কর্ণধার। তাই নিজেকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলতে রাজনীতির পাশাপাশি পড়ালেখা করতে হবে। নানা জ্ঞান অর্জন করতে হবে। নিজেকে পরিচ্ছন্ন মানুষ হিসেবে তৈরি করতে হবে। মানুষের সেবা করতে হবে। তবেই তোমরা দেশকে ভালো কিছু দিতে পারবে। তোমাদের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পরিপূর্ণ হবে এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টা সার্থক হবে।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এম এম সাদ্দাম হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবু মোঃ মারুফ আদনানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্মবিষয়ক সম্পাদক এড. সিরাজুল মোস্তফা, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এড ফরিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, মহেশখালি-কুতু্বদিয়া আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ।
জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাদ্যমে প্রধান অতিথি জাহাঙ্গীর কবীর নানক কর্মসূচী উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর কোরআন তেলোয়াত ও গীতা পাঠ এবং জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে আলোচনা সভা শুরু হয়।
আলোচনার শেষে এক বিশাল র্যালী বের করা হয়। র্যালিটি শহীদ দৌলত ময়দান থেকে শুরু হয়ে বার্মিজ মার্কেট হয়ে আবার শহীদ দৌলত ময়দানে গিয়ে সমাপ্ত হয়।
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচীতে জেলার সকল ইউনিটের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেয়। এতে কক্সবাজার শহরে এক উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
রাতে দেশাত্ববোধক গানের এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এর মাধ্যমে কর্মসূচী সমাপ্ত করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ